Home / পত্রসম্ভার / শ্রদ্ধান্বেষু প্রেমিকা!

শ্রদ্ধান্বেষু প্রেমিকা!

শ্রদ্ধান্বেষু প্রেমিকা!

দিনশেষে জন্মদিনের শুভেচ্ছা দিয়েই শুরু করছি। “কেমন আছেন?” প্রশ্নটা সম্ভবত সেকেলে লাগে। “সময়টার রোখ কোন দিকে আছে?” প্রশ্নটা সম্ভবত করা যেতে পারে। অনেক দিন হয়ে গেছে সম্ভবত আমাদের চিঠির আদান প্রদান হয় না। তবে, শেষ চিঠি মনে হয় আমারই ছিলো। সেটার প্রত্যুত্তরের অপেক্ষা হয়েছিলো দীর্ঘসময়। কিন্তু আসেনি।

শীতের রাতে জোৎস্নার আলো দেখার সাধ করাটা পাপ না, কিন্তু সবসময় দেখা যায় না। এই ধরুন, এখন আমার ইচ্ছে হচ্ছে চাঁদ দেখার। অথচ, সাধ থাকলেও সাধ্য নেই। গত জন্মদিনে আপনাকে সারপ্রাইজড করেছিলাম। এবারও ইচ্ছে ছিলো। কিন্তু সময় পক্ষে ছিলো না। তবে, তোলা রইলো।

আপনার চিঠির কথা বলি, আমি জানতাম আপনার থেকে চিঠিটা পাবো। এটা বিশ্বাস ছিলো। কয়েক লাইনের চিঠি হলেও পাবার আশা ছিলো। জন্মদিনের ৮ম চিঠি ছিলো আপনারটা। অবাক হইনি একটু্ও। অনেক বেশি খুশি হয়েছি। প্রাণবন্ত হয়েছি। মনে হয়েছে পুরোনো খামে পুরোনো প্রেরকের নতুন চিঠি! আহা!

গতবারের মতো এবারও আমি AFWBC এর বাকি তিনজন মেম্বার থেকে গতবারের মতো উইশ পাবো ভেবেছিলাম। যে যার মতো করে উইশ করেছে। কিন্তু সময়টা অনেক বেশি বদলে গেছে। আপনার ওই লাইনগুলি বলতে হয়, “জীবনের আরেকটি বছরের সমাপ্তি ঘটলো। কতটা নিলাম আর কত দিলাম ভাবতে গেলেই মনটা আঁতকে ওঠে…!”

জীবনের সব চাওয়া পূরণ হবে বলে জানা নেই। এর এমন আশা করাও পাপ। কেন বললাম সেটা বলার প্রয়োজন বোধহয় নেই। তবে, ভালোবাসাগুলো বেঁচে থাকুক অনন্তকাল সেই প্রার্থনা করতেই পারি, করি।

অনেকদিন পর তো! আবার গুলিয়ে ফেলছি সব। অস্থিরতার ভেতর কাটছে আমার প্রতিটি সেকেন্ড। বলতে পারেন স্থিরতাই বা ছিলো কখন! তবে, আমি অনেক শান্ত হয়ে গেছি।

রাতের স্তব্ধতাদের সঙ্গি করে ভালো থাকুন। ছেলেকে মামার পক্ষ থেকে ভালোবাসা জানাতে ভুলবেন না। ভালো থাকবেন, ভালো রাখবেন চারপাশ।

-ইতি
-আপনার পিচ্চু প্রেমিক

Facebook Comments

About Priyo Golpo

Check Also

আমাকে একবার ছুঁয়ে দেখবে না?

“তোমার সংসার কেমন চলছে?” -“ভালো।” _”বর কেমন আছে?” -ভালো। _”তুমি ভালো আছ?” -“হুম।। ভালো!” …তারপর …

error: Content is protected !!