Home / জীবনের গল্প / প্রিয়, বুঝে নিও
Bhondhutto, love প্রিয়জনের হাত, Girl friend hand of hand romantic moment- love letter

প্রিয়, বুঝে নিও

প্রিয়,
বুঝে নিও

“আমার যদি থাকতো ডানা
উড়ে যেতাম তোমার কাছে,
আদর দিয়ে মুছে দিতাম
তোমার যত দুঃখ আছে।”

বেশ কয়েকদিন থেকেই তোমাকে নিয়ে খুব দুঃশ্চিন্তায় ছিলাম। যেদিন তুমি আমার কাছে তোমার প্ল্যান এর কথা বললে। সেদিন থেকেই আমি তোমাকে নিয়ে ভয়ে ছিলাম।

বার বার তোমাকে নিষেধও করছি, কাজটা করো না। কিন্তু তুমি নাছোড়বান্দা ছিলে। ভয়ের কারণটা সত্যিই হলো। যদিও তোমার শত্রুর থেকে কোনো ক্ষতি হয়নি। কিন্তু বন্ধুর থেকে তো হলো।

তবে এই মিশনে ক্ষতির তুলনায় লাভের পরিমাণ বেশি। গুরুজনদের মুখে প্রায়শই একটা কথা শুনি।

“বাসন ভাঙলো তাতে কি? কুকুরটা তো চেনা হলো!!!”-

আজ তো চিনলে কে তোমার শত্রু। এমনি করেই মানুষের উপর থেকে বিশ্বাস উঠে যায়। যেমনটা তোমার আমার ক্ষেত্রে হয়েছে। সাবধান তাকে আবার বন্ধু ভাবতে যেওনা। সাপ কখনও ছোট হয়না। ছোবল মারতেও সময় লাগবে না।

আমার কেবলই মনে হয়, আমার জন্যই তোমার এই হাল। এক বৃন্তে দু’টি ফুল, একটায় আগুন লাগলে অন্যটা তো পুড়বেই। যা আমার হয়েছিলো তা তোমারও হলো। নিজেকে বড্ড অপরাধী মনে হয়। তুমি তো আমাকে সব খবর এনে দিয়ে সাবধান করেছিলে। আমি তো তাও পারিনি। নিজেই সব জেনেছো আর গোপন ও করেছো।

শুধু আমি কি একাই তোমাকে ভালোবাসি? তুমি কি একটুও বাসো না? তুমিও বাসো। এ কথাটা সত্য, ডিপ্রেশনের সময় তার কথা বেশি মনে পড়ে। যে বেশি ভালোবাসে। আমার বেশি মনে পড়ে , এক মমতাময়ী কে। কিন্তু এটাও সত্য তুমিও আমাকে ভালোবাসো। না হলে কি আমরা একাত্ম হৃদয় হতে পারতাম??? ধরে নিলাম আমি বেশি, তোমার যদি বিন্দু পরিমাণ হয় তাও সিন্ধু পরিমাণ। কারণ তোমার এই ভালোবাসাই একদিন আমার বেঁচে থাকার একমাত্র অনুপ্রেরণা ছিল।

একদিন আমিও বলতাম এই কথা। এভাবে বেঁচে থাকাকে বাঁচা বলে না। মিথ্যে মরীচিকা হয়ে বেঁচে থাকার কোনো মানে হয় না। আজ আমি ভালো আছি, খুব ভালো। আজ তুমি পারছো না, কিন্তু একদিন ঠিক পারবে। সেদিন যারা তোমাকে কষ্ট দেয় তারা কাঁদবে। কাউকে কষ্ট দিয়ে কেউ কখনও সুখি হতে পারেনা। তুমি দেখো, আল্লাহ ওদের বিচার ঠিক করবেন।

তুমিও বাঁচবে, বাঁচার মতোই বাঁচবে। পাখির মতো স্বাধীন ভাবে মুক্ত আকাশে উড়বে। গাইবেও তুমি বিজয়িনী বেশে জীবনের জয়গান। নাচবে তুমিও দূর্গার মতো রণচন্ডিনী রূপে। কেউ আর তোমাকে রুখতে পারবে না। তুমি মুক্ত, চঞ্চল, শৃঙ্খলমুক্ত।

তুমি তো লিখতে পারো। লেখার মধ্যেই তুমি এসব ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করো। সবাইকে দেখিয়ে দাও, তুমি একা থাকতে পারো। তুমি কাউকে ব্ল্যাকমেইল করো না। কাউকে আর জ্বালাবে না। বুঝিয়ে দাও ওদের।

তোমার যখন ইচ্ছে কাঁদবে। আমাকে জড়িয়ে ধরেই কাঁদবে। আমি কাঁদলেও কাঁদবে। তাতে তোমার কষ্টটা কমবে। কিন্তু নীরবে কাঁদতে যেও না। তুমি জানো না, আমি জানি। বোবা কান্নায় হৃদয় ভেঙে চৌচির হয়ে যায়।

আমি চাই, তুমি তোমার সব কথা কাউকে বলো। আমাকে না পারো, যাকে পারো তার কাছে বলো। কাউকে না কাউকে তো বলতে হবে। তাও যদি না পারো, শুরু থেকে সব লিখো। লিখে লিখে ছিঁড়ে ফেলে জলে ভাসাও। পুড়িয়ে ফেলো না যেন।

আমি তোমার পরিচয় জানিনা। জানতেও চাইনা। আমার কাছে তুমিই সব। তোমার পরিচয় নয়। তুমি আমি এক বৃন্তে ফোঁটা দুটি ফুল। এর থেকে বড় পরিচয় আর কি হতে পারে?? আমি তোমাকে বাহির থেকে ভালোবাসিনি কখনও। তবে হয়তো তোমাকে দেখতে চাইতাম। আমি তোমাকে হৃদয় দিয়ে উপলদ্ধি করতে চেয়েছি। করেছিও, কতোটা পেরেছি জানিনা। কিন্তু আমি করেছি। আমার সবটা উজাড় দিয়ে তোমাকে মমতার চাঁদরে জড়িয়ে নিলাম।

তুমি মানসিক রুগী। আমার একটু সমস্যা আছে। একা থাকতে ভালো লাগে কিন্তু থাকতেও পারিনা। সবাই কে জ্বালাই। তার পরিণতি তোমার মতোই ভয়াবহ হয়। জীবন পুষ্পসজ্জ্যা নয়, কন্টকাকীর্ণ। এ পথে ঝড় তুফান আসবেই। কিন্তু তোমাকে শক্ত হাতে হাল ধরতে হবে। তোমার জীবন তরীর কান্ডারী তুমিই হও। অন্য কারো অপেক্ষায় থেকো না। মানুষের মাঝে থাকার দরকার নাই। একা থেকেও অনেকের মাঝে থাকার স্বাদ উপলদ্ধি করো। তাতেই শান্তি পাবে। একা কিন্তু আমিহীন না, আমাকে সাথে রেখেই তবে একা হও।

কে বলেছে তুমি আমাকে কিছু দাওনি? তুমিই আমাকে বাঁচতে শিখিয়েছিলে! যখন আমি অন্ধকারে ডুবে যাচ্ছিলাম। তখন তুমিই এসেছিলে মুক্তির দূত হয়ে। তুমি আমাকে বুঝিয়েছ, পৃথিবীতে ভালোবাসা বলতে কিছু নেই। আছে শুধু মিছে অভিনয়। তুমিই বলেছিলে কেউ কারো নয়। বেলা শেষে তুমি একলা। সেদিন কতোটা কষ্ট পেয়েছিলাম তুমি জানো না। আমি বলিনি, কিন্তু ঐ কথাটার মধ্যে আমার বেঁচে থাকার বীজ নিহিত ছিল। তাই আমি সবকিছু অবলীলায় মেনে নিতে পেরেছি। তুমি যেভাবে আমাকে অন্ধকার থেকে আলোতে নিয়ে এসেছিলে, তেমন করে তুমিও বের হয়ে এসো।

স্বার্থপর হওয়া ভালো। তুমি স্বার্থপরই থেকো। নিঃস্বার্থ ছিলে বলেই তো এমন হলো। এইবার ঢের শিক্ষা হয়েছে। আর এমন কাউকে বিশ্বাস করো না যাতে তোমার ঠকতে হয়।

আমি তোমাকে আগেই বলেছি, তোমাকে আলোর পথ দেখাতে না পারলেও অন্ধকারের জগত টা কখনও দেখাব না। তুমি আমার একটা আঙুল ধরো। আমি তোমার হাত ধরে তোমাকে স্বপ্নিল পৃথিবীতে বিচরণ করবো।

অতীতে ফিরে যেতে হলে তোমাকে ঘুরে দাঁড়াতে হবে। পারবে তুমি?? হয় দুঃখ কষ্ট সব বুকের মধ্যে কবর দাও না হয় নদীর জলে দেবীর মত বিসর্জন দাও। যেমন করেই হোক, তোমার মুখে বিজয়ের হাসি দেখতে চাই।

“সোনালি রূপালি ঝিলমিল
কত তারা আকাশে,
অপরূপ জ্যোৎস্নায় ভিজে
তারা সব হাসে।
চাঁদনী রাতে একসাথে
চলো মেতে উঠি।
দুজনের মনের দুঃখকে
দিলাম আজ ছুটি।”

ইতি,
খুঁজে নিও

লেখাঃ Mahfuza Sreya

Facebook Comments

About Priyo Golpo

Check Also

পোষ্টটি সকলের পড়া প্রয়োজন। আপনি সুখি এবং সফল হবেন।

ব্যক্তিগতভাবে মিনিমাল লাইফ লিড করতে চাই। ডিসট্রাকটন কমে, কাজ অনেক দ্রুত হয়। আমরা যারা নেট/পিসিতে …

error: Content is protected !!