Home / পত্রসম্ভার / প্রিয়াত্মা

প্রিয়াত্মা

 

প্রিয়াত্মা,
ঠিক তেরো দিন পরে লিখছি। ভেবে রেখেছিলাম রোজ একটা করে লিখবো…। কিন্তু ইদানীং লিখতে বসে আমি আবিষ্কার করি, আমার মন খারাপ হচ্ছে প্রচণ্ড রকম। অথচ তুমি বার বার করে বলে দিয়েছো, “একদম মন খারাপ করবে না পাগলী!”
তাই মন খারাপ থেকে পালিয়ে বেড়াতেই কতদিন চিঠি লেখা হয়নি।

কিন্তু, আমার যে ভীষণ অভিমান হয় জানো? মন অভিমান করে, অভিমানের বীজ বোনে শব্দেরাও। বুক জুড়ে তোমার বোনা শব্দ-জালের বড্ড হাহাকার! এত এত কবিতা লিখো, কী এমন ক্ষতি হয় একটা চিঠি লিখলে? অল্প ক’শব্দে ছোট্ট করেই না হয় লিখলে! অল্প কথার মাঝে লুকোনো গভীর অনুভূতির স্পর্শ খুঁজে নেয়ার দায় হৃদয়েরই না হয় থাকলো!

তোমার কোনো চিঠি না পেয়ে অভিমানী শব্দেরা কবিতা হতে চেয়েছে। আমি অবশ্য কবিতা বলি না। বলি ‘অনুভূতি’। সে অনুভূতিগুলোই তুলে দিলাম চিঠিতে—
“শেষ কবে লিখেছিলে বলো তো!
দু’জনার হৃদয়ের স্রোতেরা বয়ে চলে
অপেক্ষায় রাত বাড়ে-
আর আঁধারের তুলি আঁকে কঠিন বিজনতা।

দিন পাড়ি দিচ্ছে অতীতের দেশে
স্বপ্নেরা তো যাচ্ছে না; যাবে না।
তোমার অধরে হাসির মুখোশ,
অথচ চোখ জোড়া ডুবে আছে রাজ্যের বিষাদে
সেখানে জোছনার ছায়া খুঁজি কী করে বলো তো!
হৃদয়ে হাজারটা প্রশ্ন;
উত্তরেরা নিরুদ্দেশ
একটা চিঠি পেয়ে গেলে কিছু তো কম হতো!
কবে লিখবে, এ অপেক্ষা কত কালের বলো তো!”

ইতি
তোমার শ্যামলাবতী

Facebook Comments

About Priyo Golpo

Check Also

ভালোবাসা হবে রোজকার ডাল ভাতের মত। বুকের পাঁজরে মিশে থাকবে।

হুমায়ুন ফরিদী – সুবর্ণা মুস্তফা , হুমায়ূন আহমেদ – গুলতেকিন,তাহসান মিথিলার মত সেলেব্রেটিদের প্রেম বিয়ে …

error: Content is protected !!