Home / পত্রসম্ভার / দূরবাসী

দূরবাসী

দূরবাসী!

এক টুকরো চাঁদের হাসি নিয়ো!

এক বিন্দু স্বচ্ছ শিশির নিয়ো!

এক ফোঁটা অশ্রুজল নিয়ো!

আর নিয়ো এক পশলা স্মৃতির

হাহাকার! 

সত্যিকারে, এর চাইতে বেশি কিছু নেই তোমাকে দেয়ার! হয়তো তোমাকে বলতে পারতাম, “তুমি চাইলে সব এনে দেবো! নিজেকে বিলিয়ে দেবো তোমার খুশিতে, তোমাতে!” কিন্তু বলা হয়নি।

হৃদয়-নিংড়ানো আবেগমাখা জোছনাতেও ভেজাতে পারিনি তোমায়। অনুভবে কেবল অজানা-অব্যক্ত ভালোবাসাগুলো দিতে চেয়েছি তোমায়! সেটাও পারিনি। আস্তে-ধীরে দূরে সরে গেলে তুমি, অথবা আমি।

তাই শুরুতে চাঁদ-শিশির আর অশ্রুজল দিলেও, স্মৃতিগাঁথা দিলেও … দিতে পারিনি কোন ভালোবাসা। সেই অধিকারটুকু খুইয়ে ফেলেছো তুমি। অথবা খুইয়েছি আমি! প্রকৃতির নিয়ম এমনই, কেউ কাউকে মনে রাখে না। 

এতোসব গল্প, এতো এতো কবিতা, কোনটাই বাস্তব নয়।
হাজার প্রেমের গল্প, কেবল “গল্প”ই। 

আবেগময় সব কথকতা, কেবল “অলীক ভাবনা”ই!
বাস্তব হলো, “বিস্মৃতি-ভুলে যাওয়া!” কাছে থাকলে জীবনটাকে কোন উপন্যাস মনে হয়— যেখানে হাসি-কান্নার আবেশ ছাপিয়ে উত্থিত হয় প্রেমের স্ফুলিঙ্গ! আলো-আঁধারির রেশ কাটিয়ে ফুটে ওঠে ভালোবাসার স্বপ্ন! দূরের গন্ধ পেলেই হারিয়ে যেতে থাকে প্রেম ও প্রেয়সীরা! একসময় বিস্মৃতির পাতাগুলোতে ঠাই হয় সেগুলোর!

স্বপ্নচারী!

তুমি এখনো এই আকাশের নিচেই আছো!
আকাশজোড়া মেঘের ছায়াতে।

বৃষ্টির ঝরে যাওয়াতে।
রোদের মলিন হাসিতে!
তোমার চুলগুলোতে এখনো বাতাস ঝাপটা দিয়ে ফিরে যায়। পাখিগুলো অবাক চোখে তোমাকে দেখে যায়। ফুলগুলো শোভা পেতে চায় তোমার খোপাতে, গলাতে! আচ্ছা বলোতো, হাহাকার দেখতে পাও কভূ ওদের মধ্যে? বাতাসের মলিনতা সিক্ত করে কি তোমাকে? হয়তো…অথবা না। কারণ তুমিও বিশ্বাস করো, জানো, ভুলে যাওয়াটাই নীতি।

হাহাকার ভুলে জীবনকে সামনে এগিয়ে নেয়াটাই উদ্দেশ্য! অতীত কেবল অতীতই স্মৃতিপটে এসে এসে আবার ফিরে যায়, হারিয়ে যায়। আবেশ অথবা রেশ, কোনটাই থাকে না।

প্রিয় ভুল!

হ্যাঁ, মানছি— তুমি আমার জীবনের ভুল ছিলে, প্রিয় একটি ভুল। যে ভুল ক্ষণে ক্ষণে আলোড়ন তোলে। নিক্বণতালে মাতিয়ে যায়, ভাবিয়ে যায়! কখনো নিরজনে, একাকী প্রহরে, তোমার স্মৃতিগুলো কেঁপে কেঁপে ওঠে হৃদয়-পটে। হঠাৎ দুপুরে, গভীর রাতে, তোমার অভ্যাসগুলো বিচরণ করে আমাতে।

জানো, কিছু মানুষ স্মৃতি আঁকড়ে বেঁচে থাকে! ব্যস্ততা-ভীড়ে ভুলে গেলেও স্মৃতিটুকু আগলে রাখে হৃদয়-কোণে। সারাদিন ত্রস্ত পায়ে হেঁটে-চলা মানুষটাও স্থির হয়, একটু আবেগ মিশিয়ে স্মৃতিগুচ্ছ স্পর্শ করে। পরম মমতায় সোহাগে ভাসায়। বাস্তব জগত থেকে দূরে, বহুদূরে। যেখানে হাজার মানুষের উল্লাস আর হাজার যান্ত্রিক শব্দ— সব ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিকের মতো সুরময় লাগে। জগতটা কেবল দুজনের, আমার আর স্মৃতির।

ভালো থেকো, যেখানেই থাকো! সুখে থেকো, যেই জগতেই থাকো!

ইতি—
হারিয়ে-যাওয়া এক নিষ্প্রভ প্রাণ!

Facebook Comments

About Priyo Golpo

Check Also

ভালোবাসা হবে রোজকার ডাল ভাতের মত। বুকের পাঁজরে মিশে থাকবে।

হুমায়ুন ফরিদী – সুবর্ণা মুস্তফা , হুমায়ূন আহমেদ – গুলতেকিন,তাহসান মিথিলার মত সেলেব্রেটিদের প্রেম বিয়ে …

error: Content is protected !!